Projukti Protidin

(প্রযুক্তি প্রতিদিন) চলতি বছর বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে বাংলালিংক কতৃপক্ষ কয়েক দফায় চাকরিচ্যুত করেছেন বেশ কয়েক’শ কর্মীকে। ফেব্রয়ারিতে শুরু হওয়া এই প্রক্রিয়ার অংশ হিসাবে সম্প্রতি আবার ৪ জন কর্মীকে নতুন করে চাকরিচ্যুত করেছে।

আজ সকালে বেআইনি কার্যক্রম ও অস্বচ্ছ উপায়ে কর্মী ছাটাই বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ কর্মসূচি, মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন করেছে বাংলালিংকের চাকরিচ্যুত সাধারণ কর্মচারীরা। সংবাদ সম্মেলনে চাকরিচ্যুত কর্মীরা বলেন, গত ৬ ও ৭ সেপ্টেম্বর ট্রেড ইউনিয়ন করার অভিযোগে বাংলালিংকের কর্মী মোসলেহ উদ্দিন ভুট্টু, আহমেদ মিজানুর রহমান, জাহিদুল ইসলাম এবং আরিফুল ইসলামকে চাকরিচ্যুত করা হয়। ট্রেড ইউনিয়ন বন্ধে ওই চার কর্মকর্তাকে চাকরিচ্যুতির পর এবার আরো কর্মচারীকে ছাটাইয়ের হুমকি দিয়েছে বাংলালিংক কর্তৃপক্ষ। তারা বাংলালিংক ট্রেড ইউনিয়নের সক্রিয় সদস্য ছিলেন। আচরন বিধি লংঘনের কারণ দেখিয়ে চাকরি থেকে অব্যহতি দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন, সদ্য চাকরিচ্যুত জাহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, সদ্য চাকরিচ্যুত হওয়া ৪ জনই বাংলালিংক এপ্লয়ীজ ইউনিয়নের সক্রিয় নেতা-কর্মী। আচরনবিধি লংঘনের যেসব অভিযোগে বাংলালিংক আমাদেরকে ছাটাই করেছে তাও তদন্তের মাধ্যমে প্রমানিত হয়নি! আমাদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযােগ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। এই পরিস্থিতে আজ প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মলনের মাধ্যমে এই ব্যাপারে চাকরিচ্যুত কর্মীরা প্রধানমন্ত্রীর হস্থক্ষেপ কামনা করেন। চাকরি ফেরত না পেলে আরো বড় আন্দোলনে যাবে বলে জানিয়েছেন, বাংলালিংক ট্রেড ইউনিয়নের সদস্যরা।

বাংলালিংক কতৃপক্ষ জানিয়েছে, বাংলালিংক একটি কমপ্লায়েন্ট কোম্পানি যা একটি সুনির্দিষ্ট আচরণবিধি দ্বারা পরিচালিত হয়। সম্প্রতি সুনির্দিষ্ট প্রমাণাদির উপর ভিত্তি করে কিছু কর্মকর্তার অনৈতিক, অগ্রহণযোগ্য এবং আচারণবিধির পরিপন্থি হিসাবে প্রমাণিত হওয়ায় কোম্পানি তার প্রচলিত নীতি অনুসারে তাদেরকে চাকুরি থেকে অব্যাহতি দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *